1. rajeshgourpress@gmail.com : rajesh24 :
  2. mediaitbd@gmail.com : mit : Editor
শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ০৪:৫৭ অপরাহ্ন
ঘোষণা:
শিরোনাম:
দুর্গাপুর হেল্পলাইন গ্রুপ কতৃক আয়োজিত প্রতিযোগিতা বিজয়ীদের পুরুষ্কার বিতরণ দুর্গাপুরে সীমান্তবর্তী পাহাড়ি অঞ্চলে শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণ করে পথ পাঠাগার দুর্গাপুরে প্রিপ ট্রাস্টের কমিউনিটি ডায়ালগ সেশন বিষয়ক কর্মশালা দুর্গাপুরে প্রিপ ট্রাস্টের কমিউনিটি ডায়ালগ সেশন বিষয়ক কর্মশালা দুর্গাপুরে প্রিপ ট্রাস্টের সাম্প্রদায়িক অধিকার বিষয়ক কর্মশালা কলমাকান্দায় আগুন পুড়ে যাওয়া বাড়ির মালিকের পাশে দাড়ালেন চেয়ারম্যান প্রার্থী হাজী জয়নাল আবেদীন কলমাকান্দায় জেলা প্রশাসকের মতবিনিময় সভা ও আশ্রয়ন প্রকল্প উদ্ভোধন SDPL -T10 সেমিফাইনালে বাগিচাপাড়া স্পোর্টিং ক্লাবকে হারিয়ে ফাইনালে SB স্পোর্টিং ক্লাব নেত্রকোনায় সুপারি পাড়তে গিয়ে গাছ থেকে পড়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু দুর্গাপুরে বালুবাহী লরি গাড়ি উল্টে চালক নিহত

মানিব্যাগে প্রেমিকার ছবি, প্রতিবাদ করায় স্ত্রীকে হত্যা

  • আপডেট: রবিবার, ১ নভেম্বর, ২০২০
  • ২৬৯ বার পড়া হয়েছে

পাবনার ঈশ্বরদীতে মানিব্যাগে প্রেমিকার ছবি রাখার প্রতিবাদ করায় স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে এক স্বামীর বিরুদ্ধে। গতকাল শনিবার রাতে উপজেলার সাহাপুর ইউনিয়নের আওতাপাড়া গ্রামে জাহিদের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ওই গৃহবধূর নাম ঐশী (২২)।

এই ঘটনায় ঐশীর মা বাদী হয়ে আজ রোববার জাহিদ ও তার পরিবারের তিন সদস্যকে আসামি করে মামলা করেছেন। নিহত গৃহবধূর পরিবারের দাবি, স্বামী তার মানিব্যাগে প্রেমিকার ছবি রেখেছিলেন। এ নিয়ে প্রতিবাদ করায় তিনি স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা করেছেন।

ঐশী আওতাপাড়া গ্রামের জাহিদ হোসেনের স্ত্রী ও একই গ্রামের বাঁশেরবাদার মাহাবুল ইসলামের মেয়ে। আর তার স্বামী মো. জাহিদ হোসেন একই গ্রামের হারুণের ছেলে এবং রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রকল্পের সাব ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স কোম্পানিতে চাকরি করেন। তাদের সংসারে আট মাসের একটি মেয়ে সন্তান আছে।

ঐশীর খালা রুপা বলেন, ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসে জাহিদের সঙ্গে ঐশীর বিয়ে হয়। বিয়ের সময় ঐশীর পরিবার ৩ লাখ টাকা যৌতুক দেয়। পরে আরও কিছু টাকা যৌতুক দাবি করেন জাহিদ। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ হয়। এর মধ্যে জাহিদ পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। নিজের মানিব্যাগে জাহিদ ওই নারীর ছবি রাখেন। এর প্রতিবাদ করেন ঐশী। এ নিয়ে দুদিন ধরে তাদের দাম্পত্য কলহ চরম আকার ধারণ করে।

ঐশীর পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, স্বামী জাহিদসহ তার পরিবারের সবাই বিয়ের পর থেকে যৌতুকের টাকা দাবি করে ঐশীকে মারধর করতো। গত শুক্রবারও ঐশীকে মারধর করা হয়।

লিখিত অভিযোগে ঐশীর মা শাহানারা জানান, বিয়ের সময় নগদ টাকাসহ আসবাবপত্র দেওয়া হয়। পরে যৌতুকের দাবিতে আরও ৩ লাখ টাকা ও এক লাখ ৭০ হাজার টাকার মোটরসাইকেল দেওয়া হয়। তারপরও গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় টাকার জন্য ঐশীকে স্বামী জাহিদসহ তার পরিবারের সদস্যরা পিটিয়ে হত্যা করে।

পরে জাহিদ ((২৬) , তার মা মরিয়ম (৫০), ভাই মকলেছুর রহমান (২৯), ভাবি রেশমা খাতুন (২৪) বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। এলাকার মানুষের কাছে খবর পেয়ে ঐশীর পরিবার মেয়েকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নাসির উদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তর জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আাসলে বিস্তারিত জানা যাবে। অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

সূত্র-বিজনেস বাংলাদেশ

সংবাদটি শেয়ার করুন

Comments are closed.

আরো সংবাদ পড়ুন
© স্বর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের যোকোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার