দুর্গাপুরে একদিনে একই পরিবারের ৮জনসহ করোনা সনাক্ত- ৯, গণবিজ্ঞপ্তি জারি

রাজেশ গৌড় রাজেশ গৌড়

দুর্গাপুর,নেত্রকোনা

প্রকাশিত: ৮:১২ অপরাহ্ণ, জুন ২০, ২০২১

রাজেশ গৌড়
নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলায় ভারতীয় সীমান্তে একই পরিবারের আটজনসহ কোভিড-১৯ সনাক্ত নয়জন। এই নয়জনের মধ্যে শিশুসহ একই পরিবারের আটজন রয়েছেন এবং তারা সকলেই দুর্গাপুর উপজেলার চন্ডিগড় ইউনিয়নে আলমপুর এলাকার। আরেকজন হলেন দুর্গাপুর পৌরশহরের ২নং ওয়ার্ডের ৫০ বছর বয়সি এক বাসিন্দা।

রবিবার রাতে দুর্গাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. মো. তানজিরুল ইসলাম জানান, গত ১৬ জুন উপজেলার আলমপুর গ্রামের মা ও মেয়ে নমুনা পরীক্ষায় কোভিড-১৯ সনাক্ত হন। পরে ২০ জুন ওই পরিবারের নয়জনের নমুনা পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়। রাতে ওই পরিবারের ছয় বছরের এক শিশুসহ আটজন সনাক্ত হন।

তিনি আরো বলেন, গত মাসে উপজেলায় সনাক্তকৃত রোগীর ছিল দুজন। চলতি মাসে ২০ জুন পর্যন্ত এর সংখ্যা ২৬ জনে।

এখবর ছড়িয়ে পড়লে জেলার সীমান্তবর্তী উপজেলা দুর্গাপুরের নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ রাজীব উল আহসান রাতেই নিজ উপজেলায় কঠোর বিধি নিষেধের গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেন।

গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, উপজেলায় ঔষধের দোকান ব্যতিত ভারতীয় সীমান্তবর্তী এলাকাসমূহে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সন্ধ্যা ৬টা ও অন্যান্য এলাকায় ৭টার মধ্যে বন্ধ করতে হবে। স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার অনুরোধসহ কাঁচা বাজারসমূহ উন্মুক্ত স্থানে স্থানান্তর করে ক্রয়-বিক্রয় নিশ্চিত করতে হবে। এ বিধি নিষেধ বাস্তবায়নে একাধিক ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হবে এবং এই নির্দেশনা ২০ জুন থেকেই কার্যকর হবে।

এনিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাজীব-উল-আহসান বলেন, অত্র উপজেলায় নতুন করে করোনা প্রকোপ দেখা দেয়ায় সচেতনতামুলক মাইকিং ও মাক্স বিতরণ অব্যাহত রয়েছে। ইতোমধ্যে শহরের সকল দোকানপাট সন্ধ্যা ৭ঘটিকা পর্যন্ত এবং সীমান্তবর্তী সকল দোকানপাট সন্ধ্যা ৬টার ভিতর বন্ধ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সকলকে আতংকিত না হয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান তিনি।